01700977037
Menu

History

মাগুরা মেডিকেল কলেজ,মাগুরা

স্বাস্থ্যসেবায় অনগ্রসর ও অবহেলিত এ জনপদের সাধারণ জনগণের জন্য জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী মানসম্মত চিকিৎসাসেবা নিশ্চিতকরণ এর স্বপ্ন অনেক দিনের।সেই লক্ষ্যে প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. আসাদুজ্জামান এর এই দীর্ঘদিনের প্রচেষ্টা সফলরূপ নেয় তাঁরই সুযোগ্য উত্তরসূরির হাত ধরে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এর জনগণের দোড়গোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌছে দেয়া ও দক্ষ চিকিৎসক তৈরির প্রয়াসের অংশ হিসাবে ২৬ আগস্ট,২০১৮ তারিখে প্রতিষ্ঠার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা পায় মাগুরা মেডিকেল কলেজ।

.

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাবেক একান্ত বিশেষ সহকারী ও বর্তমানে মাননীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এ্যাড. সাইফুজ্জামান শিখর এর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় প্রতিষ্ঠিত হয় এই মেডিকেল কলেজটি। ১২ সেপ্টেম্বর,২০১৮ তারিখে প্রথম অধ্যক্ষ হিসাবে গুরুভার গ্রহন করেন ফরিদপুর মেডিকেল কলেজের শিশু বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা: অলোক কুমার সাহা (এম.বি.বি.এস – ডিএমসি,এফ.সি. পি.এস- শিশু)। ১৫ অক্টোবর, ২০১৮ তারিখে ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের ভর্তির মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে মেডিকেল কলেজটির কার্যক্রম শুরু হয়। প্রথম ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থী নাফিসা গণি।

.

১০ জানুয়ারি,২০১৯ তারিখে ওরিয়েন্টেশনের মাধ্যমে মাগুরা সদর হাসপাতালে অবস্থিত অস্থায়ী ক্যাম্পাসে কলেজটির কার্যক্রম শুরু হয়। বর্তমানে এখানে ৪৮ জন শিক্ষার্থী অধ্যয়ন করছে। যার মধ্যে ২৫ জন ছাত্রী, ২৩ জন ছাত্র। দু’টি অস্থায়ী পৃথক আবাসন হলের মাধ্যমে নিরাপদ বাসস্থান ও খাদ্য সরবরাহ নিশ্চিত করা হয়েছে। এছাড়াও এনাটমি, ফিজিওলজি,বায়োকেমিস্ট্রি,কমিউনিটি মেডিসিন ও মেডিসিন বিভাগে রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে কারিকুলাম মেনে ক্লাস পরিচালনা হচ্ছে।

.

সেদিনের শুরু হওয়া সে শিশু মেডিকেল কলেজটি আজ হাঁটি হাঁটি পা পা করে কিছুদূর এগিয়ে তার অধিকাংশ প্রতিকূলতা কাটাতে সচেষ্ট হচ্ছে। মাননীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এ্যাড. সাইফুজ্জামান শিখর এর সঠিক দিক নির্দেশনায় ও অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা: অলোক কুমার সাহার সঠিক পরিচালনায় আস্তে আস্তে সমস্যা কাটিয়ে অন্যান্য নতুন প্রতিষ্ঠিত মেডিকেল কলেজগুলোর মধ্যে এটি আজ অন্যতম।

.

বর্তমানে এখানে একজন অধ্যক্ষ,মেডিসিন বিভাগে একজন সহযোগী অধ্যাপক এবং এনাটমি,ফিজিওলজি, বায়োকেমিস্ট্রি, কমিউনিটি মেডিসিন ও গাইনি বিভাগে একজন করে সহকারি অধ্যাপক রয়েছেন।এছাড়াও নয়জন প্রভাষক রয়েছেন বিভিন্ন বিভাগে। স্বল্পতা থাকা সত্বেও মৃতদেহ,মডেল,ভিসেরা,মাল্টিমিডিয়া, অনুবীক্ষণযন্ত্র,এনালাইজারসহ অন্যান্য শিক্ষা উপকরণের মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীরা পর্যাপ্ত তত্ত্বীয় ও ব্যবহারিক শিক্ষাগ্রহণের এক অপূর্ব সু্যোগ পাচ্ছে। রুটিন অনুযায়ী লেকচার,টিউটোরিয়াল, প্র্যাকটিকাল,ডিসেকশন ও ডেমোনস্ট্রেশন ক্লাস অনুষ্ঠিত হচ্ছে। পরীক্ষার ফল ও সন্তোষজনক। শিক্ষা কার্যক্রমের পাশাপাশি ছাত্রছাত্রীরা অন্যান্য সহশিক্ষা কার্যক্রমেও অত্যন্ত সফলভাবে অংশগ্রহন করছে।

.

সর্বোপরি নানাবিধ প্রতিবন্ধকতা থাকা সত্ত্বেও সরকারের আন্তরিক প্রয়াসে এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি তার সামগ্রিক শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রেখে এই জনপদের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এর ডিজিটাল স্বাস্থ্যসেবায় অংশগ্রহণের জন্য একটি অন্যতম শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান হিসেবে ভবিষ্যতে অবদান রাখবে। দক্ষ,মানসম্মত ও মানবিক চিকিৎসক গঠনের আত্মপ্রত্যয়ে বলিষ্ঠ এ কলেজটি বাংলাদেশের চিকিৎসা ব্যবস্থায় অবদান রাখতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।

.

সম্পাদনা: ডা: মো: আব্দুল্লাহ্-আল-সাঈফ
সহকারি অধ্যাপক, এনাটমি
মাগুরা মেডিকেল কলেজ